টিকটক বন্ধ করতে কেন ভারতের বিবৃতিকে হাতিয়ার করলেন ট্রাম্প?

এই কাজ করতে গিয়ে কেন ভারতের চিনা অ্যাপ ব্যান নীতিকে উল্লেখ করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট?

জনপ্রিয় চিনা অ্যাপ টিকটক এবং উইচ্যাট বন্ধের নির্দেশে সই করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কঠোর সুরে জানিয়ে দিলেন আগামী ৪৫ দিনের মধ্যেই বলবৎ করতে হবে এই নিয়ম। কিন্তু এই কাজ করতে গিয়ে কেন ভারতের চিনা অ্যাপ ব্যান নীতিকে উল্লেখ করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট?

এই দুই চিনা অ্যাপ বন্ধ করার কারণ দেখিয়ে ট্রাম্প বলেন যে ভারতের ইলেকট্রনিক্স এবং তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রকের তরফে ৫৯টি চিনা অ্যাপ্লিকেশনগুলির উপর নিষেধাজ্ঞার ঘোষণার সময় বলা হয় “এই অ্যাপগুলি ইউজারদের তথ্য চুরি করে এবং গোপনীয়তার সঙ্গেই করে। ব্যবহারকারীদের সেই সকল তথ্য ভারতের বাইরে অবস্থানকারী সার্ভারগুলিতে পাঠিয়ে দিচ্ছে।” ভারতের এই মন্তব্যকে হাতিয়ার করে ট্রাম্পের সাফ মত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজের প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে চলেছে। তাই সেক্ষেত্রে এই অ্যাপ নিষিদ্ধ করতে বদ্ধপরিকর।

ডোনাল্ড ট্রাম্প এও বলেন, ‘টিকটক চিনা সংস্থা। কাজেই মার্কিনিদের ব্যক্তিগত তথ্যাদি ফাঁসের ঝুঁকি থেকে যায়। এর ফলে লাভবান হবে চিনা কমিউনিস্ট পার্টি। তাই জাতীয় সুরক্ষার স্বার্থেই টিকটকের মালিকের বিরুদ্ধে আগ্রাসী পদক্ষেপ করতে হবে। ট্রাম্প শুক্রবার জানিয়েছিলেন, মাইক্রোসফ্টের কাছে টিকটক বিক্রির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করলে, তিনি যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনা করবেন। এই দুই অ্যাপ ব্যবহার করে কোনও লেনদেনও করা যাবে না। তবে ভিডিও আপলোড করা যাবে। কিন্তু ব্যবসায়িক যোগ আছে কিংবা কোনও সংস্থা এই অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবে না।

Read Full Article Here

Continue Reading

ভারতে করোনা ভ্যাকসিনের দাম হবে ২২৫ টাকা! ‘সিরাম’কে বিপুল অর্থ সাহায্য বিল গেটসের

কোভিড ১৯-এর ভ্যাকসিন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে GAVI এবং বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের সঙ্গে চুক্তি করল ভারতের ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থা সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া। আর সে জন্যে গেটসের তরফে বিপুল অর্থ সাহায্য করা হল সংস্থাটিকে।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিন ইতোমধ্যে সাড়া জাগালেও গোটা বিশ্বের মধ্যে এখনও পর্যন্ত অক্সফোর্ডের করোনা-ভ্যাকসিনই সবথেকে বেশি নির্ভরশীলতার পথে হাঁটছে। ইতোমধ্যেই বেশ কয়েক ধাপ ‘পাশ’ করে গিয়েছে অক্সফোর্ডের সেই ভ্যাকসিন। আর অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কয়েক ধাপ পরীক্ষায় পাশ করতেই পুনের সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া সংস্থাটির উপর প্রচারের আলো এসে পড়েছে। কারণ ভারতে সেই ভ্যাকসিন তৈরির দায়িত্ব নিয়েছে পুনের সংস্থাটি। এবার অভূতপূর্বভাবে সিরামের সঙ্গে হাত মেলালেন বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি বিল গেটস!

মারণ ভাইরাস করোনার ভ্যাকসিন ভারতের বাইরেও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সুষ্ঠুভাবে পৌঁছে দিতে GAVI এবং বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের সঙ্গে চুক্তি করল ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া। আর এই চুক্তির অন্যতম কারণই হল, অনুন্নত দেশগুলিতে যাতে গরিব মানুষের কাছে অত্যন্ত সস্তায় ভ্যাকসিনটি পৌঁছে দেওয়া যায়। জানা গিয়েছে, অক্সফোর্ডের সেই ভ্যাকসিনের প্রতিটি ডোজের দাম হতে পারে ৩ ডলার, অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় মাত্র ২২৫ টাকা! ভারত ছাড়াও বিশ্বের আরও ৯২টি দেশে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব নিয়েছে সিরাম। সেই সূত্রেই ১০ কোটি ভ্যাকসিন তৈরির জন্য GAVI এবং বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন ১৫ কোটি ডলার তুলে দিয়েছে ভারতের ‘সিরাম’ সংস্থার হাতে।

Read Full Article Here

Continue Reading

ঠাকুরদাই অনুপ্রেরণা, আইএএস হয়ে বাংলাতেই কাজ করতে চাই: রৌণক আগরওয়াল

বছর নয়েক আগেও এক পরীক্ষার ফল তাঁকে সংবাদ শিরনামে এনেছিল। এরপর আরও একবার। সেবার ২০১১ সালের উচ্চমাধ্যমিক মেধাতালিকা চিনিয়ে দিয়েছিল বাণিজ্য বিভাগে প্রথম স্থানাধিকারীকে। আর এবার ইউপিএসসি-র সফল প্রার্থীদের তালিকাও ত্রয়োদশ স্থানে দেখাচ্ছে ওই একই নাম। তিনি উত্তর কলকাতার কাশী বোস লেনের বাসিন্দা রৌণক আগরওয়াল। দু’বারের চেষ্টার পর, তৃতীয়বারে ভারতের সর্বোচ্চ সরকারি চাকরির লক্ষ্যভেদ করেছেন ২৬ বছরের রৌণক। ধমনীতে (বংশ পরম্পরায়) ব্যবসা থাকলেও ছেলেটির এই লক্ষ্য স্থির করে দিয়েছিলেন তাঁর ঠাকুর্দা। সেই থেকেই সাফল্যের জন্য ঘাম ঝরান লড়াই। কেমন ছিল সেই লড়াই? আজকের সাফল্যের পর জীবনের পরবর্তী লক্ষ্য কী? দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা-কে সে সব কথাই অকপটে জানালেন হবু আইএএস অফিসার রৌণক আগরওয়াল

পারিবারিক ব্যবসা ছেড়ে হঠাৎ কেন আইএএস? শুধুই কি সরকারি চাকরি নাকি অন্য কোনও ভাবনা চিন্তা থেকে এই সিদ্ধান্ত?

Read Full Article here

Continue Reading

সুশান্তের সঙ্গে অঙ্কিতার কী কথা হয়, হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট খতিয়ে দেখছে ইডি

মনিকর্ণিকার মুক্তির পর অঙ্কিতাকে ফোন করেন সুশান্ত 

নিজস্ব প্রতিবেদন : অঙ্কিতা লোখন্ডের সঙ্গে কী কথা হয়েছিল সুশান্ত সিং রাজপুতের, সেই কথপোকথনের পুঙ্খনুপুঙ্খ বিবরণ খতিয়ে দেখছে ইনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। এসবের পাশাপাশি বিহার পুলিসের ডিজিপি জানান, গত ৪ বছর ধরে সুশান্তের অ্যাকাউন্টে কত টাকা ক্রেডিট করা হয়েছে, কত তোলা হয়েছে, তার বিবরণও খতিয়ে দেখছে ইডি।

রিপোর্টে প্রকাশ, গত ৪ বছর ধরে সুশান্তের অ্যাকাউন্টে ৫০ কোটি ক্রেডিট করা হয়। তারপরই সুশান্তের অ্যাকাউন্ট থেকে পরপর অর্থ তুলে নেওয়া হয়। এরপর ১৭ কোটি ক্রেডিট করা হলেও, সেখান থেকে তুলে নেওয়া হয় ১৫ কোটি। অভিনেতার অ্যাকাউন্ট থেকে বিশাল অঙ্কের ওই অর্থ কোথায় সরিয়ে নেওয়া হয়, সে বিষয়ে ইডি খোঁজ শুরু করেছে বলে খবর।

Read Full Article Here

Continue Reading